ঢাকা ১০:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীর আড়ানীতে ধুমকেতু ট্রেনে আগুন, প্রাণে রক্ষা ১ হাজার যাত্রীর

নববানী নিউজ ডেস্ক

ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনের চাকার বিয়ারিং জাম হয়ে আগুন ধরে যায়। এতে ট্রেনের প্রায় ১ হাজার যাত্রী প্রানে রক্ষা পেয়েছেন। বগি পরিবর্তন করে তিন ঘন্টা পর ট্রেন চলাচল শুরু হয়। ঘটনাটি ঘটেছে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানীতে রেল স্টেশনে বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে। এতে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।

সংশ্লিষ্ট্র সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী থেকে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেন ঢাকার উদ্দ্যেশে রওনা হয়। আড়ানী স্টেশনে রাত ১১ টা ৫৫ মিনিটে পৌছার কথা ছিল। কিন্তু ট্রেন কিছুটা বিলম্বের কারনে পৌছে রাত ১২টা ৯ মিনিটে। ট্রেনটিতে ১৬টি বগিতে প্রায় ১ হাজার যাত্রী ছিল। এরমধ্যে ৭৬০৩ নম্বরের এক্সটা-৩ বগির চাকার বিয়ারিং জাম হয়ে আগুন ধরে যায়। ট্রেন আড়ানী স্টেশনে পৌছার আগে চলন্ত অবস্থায় আগুন দেখতে পাই এক যাত্রী।

তারপর কিছুক্ষনের মধ্যে ট্রেন স্টেশনে পৌছে এবং যাত্রীদের আগুন আগুন করে হইচই শুরু হয়। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রন করে। আগুন নিয়ন্ত্রনের পর ট্রেনের বগি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে রেল কর্তৃপক্ষ। পরে রাজশাহী থেকে একটি বগি এনে রাত ৩টার দিকে ২ ঘন্টা ৫১ মিনিট বিলম্বের পর ট্রেন ঢাকার উদ্দেশ্যে ছাড়া হয়।

এ বিষয়ে আড়ানী রেল স্টেশন মাষ্টার ময়েন উদ্দিন আজাদ বলেন, ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনের চাকার বিয়ারিং জাম হয়ে ধোয়া বের হচ্ছিল । ট্রেন থামার পর নিয়ন্ত্রন করা হয়। বিষয়টি রাজশাহী রেলের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা অসিম কুমার তালুকদার স্যারকে অবগত করে ট্রেনের বগি পরিবর্তন করা হয়। এতে প্রায় ২ ঘন্টা ৫১ মিনিট সময় লাগে। তবে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।

জনপ্রিয় সংবাদ

বান্দরবানকে স্মার্ট পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হবে: ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি আপেল মাহমুদ।

রাজশাহীর আড়ানীতে ধুমকেতু ট্রেনে আগুন, প্রাণে রক্ষা ১ হাজার যাত্রীর

আপডেট সময় ১২:৪৭:৫১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৬ জুলাই ২০২২

ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনের চাকার বিয়ারিং জাম হয়ে আগুন ধরে যায়। এতে ট্রেনের প্রায় ১ হাজার যাত্রী প্রানে রক্ষা পেয়েছেন। বগি পরিবর্তন করে তিন ঘন্টা পর ট্রেন চলাচল শুরু হয়। ঘটনাটি ঘটেছে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানীতে রেল স্টেশনে বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে। এতে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।

সংশ্লিষ্ট্র সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী থেকে রাত সাড়ে ১১টার দিকে ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেন ঢাকার উদ্দ্যেশে রওনা হয়। আড়ানী স্টেশনে রাত ১১ টা ৫৫ মিনিটে পৌছার কথা ছিল। কিন্তু ট্রেন কিছুটা বিলম্বের কারনে পৌছে রাত ১২টা ৯ মিনিটে। ট্রেনটিতে ১৬টি বগিতে প্রায় ১ হাজার যাত্রী ছিল। এরমধ্যে ৭৬০৩ নম্বরের এক্সটা-৩ বগির চাকার বিয়ারিং জাম হয়ে আগুন ধরে যায়। ট্রেন আড়ানী স্টেশনে পৌছার আগে চলন্ত অবস্থায় আগুন দেখতে পাই এক যাত্রী।

তারপর কিছুক্ষনের মধ্যে ট্রেন স্টেশনে পৌছে এবং যাত্রীদের আগুন আগুন করে হইচই শুরু হয়। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আগুন নিয়ন্ত্রন করে। আগুন নিয়ন্ত্রনের পর ট্রেনের বগি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে রেল কর্তৃপক্ষ। পরে রাজশাহী থেকে একটি বগি এনে রাত ৩টার দিকে ২ ঘন্টা ৫১ মিনিট বিলম্বের পর ট্রেন ঢাকার উদ্দেশ্যে ছাড়া হয়।

এ বিষয়ে আড়ানী রেল স্টেশন মাষ্টার ময়েন উদ্দিন আজাদ বলেন, ধুমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনের চাকার বিয়ারিং জাম হয়ে ধোয়া বের হচ্ছিল । ট্রেন থামার পর নিয়ন্ত্রন করা হয়। বিষয়টি রাজশাহী রেলের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা অসিম কুমার তালুকদার স্যারকে অবগত করে ট্রেনের বগি পরিবর্তন করা হয়। এতে প্রায় ২ ঘন্টা ৫১ মিনিট সময় লাগে। তবে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।