ঢাকা ১১:২৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুরি আতংকে রাত জেগে গরু পাহারা দিচ্ছেন ওসি

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আসন্ন  কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে গরু চুরি হয়ে যাওয়ার ভয়ে আতংকে দিনপার করছেন রাজশাহীর দূর্গাপুর উপজেলাবাসী। তবে তাদের এ আতংক দূর করার জন্য নিজেই রাত জেগে গরু পাহারা দিচ্ছেন দূর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজমুল হক।
রাত  থেকে শুরু করে ভোর রাত পর্যন্ত খামারিদের শেষ সম্বল রক্ষা করতে উপজেলার এ প্রান্তে থেকে ওই প্রান্ত পর্যন্ত টহল দিচ্ছেন ওসি নাজমুল হক।  তার এমন মহৎ উদ্যোগে এখন নির্ভয়ে রাত কাটাচ্ছেন এলাকাবাসী।
উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের কৃষক সুজন আলী বলেন, প্রতিবার কোরবানির ঈদের আগে গরু চুরির ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় আমরা অনেক আতংকে থাকি। সারারাত ভালোভাবে ঘুমাতে পারিনা গরু চুরি হয়ে যাওয়ার ভয়ে। তবে ওসি স্যার যে আমাদের কথা চিন্তা করে নিজে না ঘুমিয়ে এভাবে রাতে ঘুরে ঘুরে গরু পাহারা দিচ্ছেন এজন্য আমরা অনেক ধন্যবাদ জানাই।
ঝালুকা ইউনিয়নের খামারি সাইফুল ইসলাম বলেন, এই সময়ে চোরদের ভয়ে থাকি। চুরির ঘটনা বেশি ঘটে। তবে বর্তমান  ওসি স্যারের মত এমন ওসি দূর্গাপুর থানায় এর আগে দেখিনি যিনি নিজে না ঘুমিয়ে আমাদের জন্য রাত জেগে টহল দিচ্ছেন। এটা আমাদের উপজেলাবাসীর জন্য একটা ভালো সংবাদ।
জয়নগর ইউনিয়নের আরেক খামারী ইউসুফ আলী বলেন,  আমরা এমন ওসি স্যার পেয়ে অনেক খুশি। যিনি আমাদের সম্পদ রক্ষা করতে নিজে না ঘুমিয়ে পুরো উপজেলা পাহারা দিচ্ছেন।  আর এ কারনে উপজেলায় গরু চুরির ঘটনা অনেক কমে গেছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে দূর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজমুল হক বলেন,  ঈদের আগ মুহূর্তে গরু চোরের উপদ্রব বেড়ে যায়। অনেকের শেষ সম্বল হারিয়ে যাওয়ার ভয়ে আতংকে রাত পাড় করে। এ কারনে আমি  রাত থেকে শুরু করে ভোর পর্যন্ত পুরো উপজেলায় টহল দিই। আর এটা আমার নৈতিক দায়িত্ব।
জনপ্রিয় সংবাদ

বান্দরবানকে স্মার্ট পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হবে: ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি আপেল মাহমুদ।

চুরি আতংকে রাত জেগে গরু পাহারা দিচ্ছেন ওসি

আপডেট সময় ০২:২৮:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ জুন ২০২২
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আসন্ন  কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে গরু চুরি হয়ে যাওয়ার ভয়ে আতংকে দিনপার করছেন রাজশাহীর দূর্গাপুর উপজেলাবাসী। তবে তাদের এ আতংক দূর করার জন্য নিজেই রাত জেগে গরু পাহারা দিচ্ছেন দূর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজমুল হক।
রাত  থেকে শুরু করে ভোর রাত পর্যন্ত খামারিদের শেষ সম্বল রক্ষা করতে উপজেলার এ প্রান্তে থেকে ওই প্রান্ত পর্যন্ত টহল দিচ্ছেন ওসি নাজমুল হক।  তার এমন মহৎ উদ্যোগে এখন নির্ভয়ে রাত কাটাচ্ছেন এলাকাবাসী।
উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের কৃষক সুজন আলী বলেন, প্রতিবার কোরবানির ঈদের আগে গরু চুরির ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় আমরা অনেক আতংকে থাকি। সারারাত ভালোভাবে ঘুমাতে পারিনা গরু চুরি হয়ে যাওয়ার ভয়ে। তবে ওসি স্যার যে আমাদের কথা চিন্তা করে নিজে না ঘুমিয়ে এভাবে রাতে ঘুরে ঘুরে গরু পাহারা দিচ্ছেন এজন্য আমরা অনেক ধন্যবাদ জানাই।
ঝালুকা ইউনিয়নের খামারি সাইফুল ইসলাম বলেন, এই সময়ে চোরদের ভয়ে থাকি। চুরির ঘটনা বেশি ঘটে। তবে বর্তমান  ওসি স্যারের মত এমন ওসি দূর্গাপুর থানায় এর আগে দেখিনি যিনি নিজে না ঘুমিয়ে আমাদের জন্য রাত জেগে টহল দিচ্ছেন। এটা আমাদের উপজেলাবাসীর জন্য একটা ভালো সংবাদ।
জয়নগর ইউনিয়নের আরেক খামারী ইউসুফ আলী বলেন,  আমরা এমন ওসি স্যার পেয়ে অনেক খুশি। যিনি আমাদের সম্পদ রক্ষা করতে নিজে না ঘুমিয়ে পুরো উপজেলা পাহারা দিচ্ছেন।  আর এ কারনে উপজেলায় গরু চুরির ঘটনা অনেক কমে গেছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে দূর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজমুল হক বলেন,  ঈদের আগ মুহূর্তে গরু চোরের উপদ্রব বেড়ে যায়। অনেকের শেষ সম্বল হারিয়ে যাওয়ার ভয়ে আতংকে রাত পাড় করে। এ কারনে আমি  রাত থেকে শুরু করে ভোর পর্যন্ত পুরো উপজেলায় টহল দিই। আর এটা আমার নৈতিক দায়িত্ব।